পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের তদন্ত প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত ঠিকাদার সকল প্রকার পেমেন্ট বন্ধ Reviewed by Momizat on . নিউজবাংলা২৪ডটনেট::  রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ভবন নির্মাণে অনিয়ম খতিয়ে দেখতে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।  রোববার গৃহায়ন ও গণপ নিউজবাংলা২৪ডটনেট::  রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ভবন নির্মাণে অনিয়ম খতিয়ে দেখতে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।  রোববার গৃহায়ন ও গণপ Rating: 0
You Are Here: Home » জাতীয় » পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের তদন্ত প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত ঠিকাদার সকল প্রকার পেমেন্ট বন্ধ

পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের তদন্ত প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত ঠিকাদার সকল প্রকার পেমেন্ট বন্ধ

নিউজবাংলা২৪ডটনেট::  রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ভবন নির্মাণে অনিয়ম খতিয়ে দেখতে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। 
রোববার গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় এ দুটি কমিটি গঠন করে। মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব এবং গণপূর্ত অধিদপ্তরের একজন অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলীর নেতৃত্বে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি করা হয়।

তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সকল প্রকার পেমেন্ট বন্ধ রাখা হবে। এ বিষয়ে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় নির্দেশনা প্রদান করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় নির্মাণাধীন ভবনের আলোচ্য কাজের বিপরীতে এখনো ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে বিল পরিশোধ করা হয়নি। তদন্ত প্রতিবেদনের সুপারিশের আলোকে বাজারমূল্যের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে বিল পরিশোধের বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে।

এদিকে, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় নির্মাণাধীন ভবনে আসবাবপত্রসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজ প্রসঙ্গে প্রকাশিত সংবাদের ব্যাখ্যা দিয়েছে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়।

রোববার মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ শাখা জানায়, ‘রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ডেলিগেটেড ওয়ার্ক হিসেবে গণপূর্ত অধিদপ্তর কর্তৃক নির্মাণাধীন ছয়টি ভবনে আসবাবপত্রসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজের জন্য দাপ্তরিক প্রাক্কলন প্রণয়নপূর্বক ছয়টি প্যাকেজে ই-জিপিতে দরপত্র আহ্বান করা হয়। প্যাকেজসমূহের প্রতিটির ক্রয়মূল্য ৩০ কোটি টাকার নিম্নে প্রাক্কলন করায় গণপূর্ত অধিদপ্তর কর্তৃক অনুমোদন ও ঠিকাদার নিয়োগ করা হয়। এক্ষেত্রে দাপ্তরিক প্রাক্কলন প্রণয়ন, অনুমোদন ও ঠিকাদার নিয়োগে মন্ত্রণালয়ের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

এতে আরো বলা হয়, ‘রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পের বিষয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টিগোচর হয়েছে।

 

সূত্র: রাইজিংবিডি

About The Author

Number of Entries : 2806

Leave a Comment

Scroll to top