ইংল্যান্ড ও উরুগুয়ের টিকে থাকার লড়াই বৃহস্পতিবার Reviewed by Momizat on . নিউজবাংলা২৪ডটনেট:: বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ব্রাজিল বিশ্বকাপের দুই হেভিওয়েট দল ইংল্যান্ড ও উরুগুয়ে। টুর্নামেন্টে টিকে থাকার জন্য দল দু’টির নিউজবাংলা২৪ডটনেট:: বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ব্রাজিল বিশ্বকাপের দুই হেভিওয়েট দল ইংল্যান্ড ও উরুগুয়ে। টুর্নামেন্টে টিকে থাকার জন্য দল দু’টির Rating: 0
You Are Here: Home » খেলার খবর » ইংল্যান্ড ও উরুগুয়ের টিকে থাকার লড়াই বৃহস্পতিবার

ইংল্যান্ড ও উরুগুয়ের টিকে থাকার লড়াই বৃহস্পতিবার

নিউজবাংলা২৪ডটনেট:: বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ব্রাজিল বিশ্বকাপের দুই হেভিওয়েট দল ইংল্যান্ড ও উরুগুয়ে। টুর্নামেন্টে টিকে থাকার জন্য দল দু’টির তীব্র লড়াই করা ছাড়া বিকল্প কোন পথ খোলা নেই। বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় সাওপাওলোতে অনুষ্ঠিত হবে ডি’ গ্রুপের এই হাই ভোল্টেজ ম্যাচটি। গ্রুপ পর্বের উদ্বোধনী ম্যাচে যথাক্রমে ইতালী ও কোস্টারিকার কাছে পরাজিত হয়ে ইংল্যান্ড ও উরুগুয়ে পৌছে গেছে ডেঞ্জার জোনে। তাই নক আউট পর্বে খেলার সম্ভাবনা জিইয়ে রাখতে হলে গ্রুপ পর্বের শেষ দুটি ম্যাচে সফলতা পেতে হবে দল দু’টিকেই। যে দলটি ওই ম্যাচে পরাজিত হবে সেটির দেশের উদ্দেশ্যে ফিরতি বিমানের টিকিট হাতে তুলে নেয়া ছাড়া বিকল্প কোন পথ খেলা থাকবে না।দু’টি দলেরই আক্রমণ ভাগ নিয়ে যথেষ্ট প্রশ্ন রয়েছে। ব্রিটিশ মিডিয়া বলেই দিয়েছে যে ইংল্যান্ড দলের প্রধান তারকা ওয়েন রুনিকে হয় দল থেকে বাদ দাও, নয়তো তার পছন্দের জায়গায় তাকে খেলতে দাও। অপরদিকে উরুগুয়ের প্রধান স্ট্রাইকার লইস সুয়ারেজ অস্ত্রোপচারের খপ্পরে পড়ে এখনো পর্যন্ত মাঠেই নামতে পারেননি।
ইংলিশ ফুটবল এসোসিয়েশন (এফএ) বলেছে, রুনি অনুরোধ করেছে তাকে বাড়তি অনুশীলনে পাঠানোর জন্য। ফেসবুকে তার ওপর সৃষ্টি হওয়া চাপে তিনি বিষ্মিত হয়েছেন বলেও জানিয়েছেন। এদিকে ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড বলেছেন তার ওই সতীর্থ চতুর্দিক থেকে আক্রান্ত হচ্ছেন। তিনি বলেন, ‘একজন খেলোয়াড়ের প্রতি আসক্তি থেকে এটা হতে পারে। আমার মতে এই বিষয়টি বাদ দিয়ে দল কেমন খেলছে সে দিকে তাকানো উচিৎ। পুরো ম্যাচ জুড়ে রুনি দাবড়ে বেড়িয়েছেন এবং তার তরুন সহকর্মীদের সাহায্য করেছেন।’
এদিকে ১ম ম্যাচে কোস্টারিকার স্ট্রাইকার জোয়েল ক্যাম্পবেলের বার বার উরুগুয়ের রক্ষণভাগে হানা দেয়ার মধ্য দিয়ে দলটির রক্ষণভাগের দৈন্যতা ফুটে ওঠেছে। শনিবারের ম্যাচে ক্যাম্পবেলকে ফাউল করে লাল কার্ড নিয়ে মাঠ ছাড়ায় বৃহস্পতিবার দলে থাকতে পারছেননা তাদের বেনিফিকা ডিফেন্ডার ম্যাক্সিমিলানো পেরেইরা। তবে ইংল্যান্ডের ভয়ের বিষয় হচ্ছে প্যারিস সেন্ট জার্মেইনের এডিনসন কাভানির সঙ্গে সুয়ারেজের জোট। যদিও সুয়ারেজ এখনো পর্যন্ত ফিট হয়ে ওঠেননি। তারপরও ম্যাচটিকে ‘ফাইনাল’ ম্যাচ বলে অভিহিত করেছেন উরুগুয়ান কোচ অস্কার তাবারেজ। অধিনায়ক দিয়েগো লুগানো ম্যাচটিকে সংজ্ঞায়িত করেছেন ‘বাঁচা মরার লড়াই’ হিসেবে। একই মন্তব্যের পুনরাবৃত্তি করেছেন ইংলিশ ফরোয়ার্ড ডেনিয়েল স্টুরিজ। তিনি বলেন, ‘যে কোন কিছু করার জন্য আমি প্রস্তুত হচ্ছি। আমি খুবই সিরিয়াস। হয় বাঁচব, নয়তো মরব।’
এই ম্যাচটি সবাইকে ফিরিয়ে নিয়ে গেছে ১৯৫৩ সালে। মন্টেভিডিওতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে জুলিও সিজার ও ওমর অস্কার মিগুয়েজের গোলে ইংলিশরা ২-১ গোলে জয়লাভ করেছিল। যদিও দুই দলের হেড টু হেড পরিসংখ্যানে ৪-৩ ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে উরুগুয়ে। তিনটি ম্যাচে দল দুটি ড্র করে।
১৯৫৪ সালে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে শিরোপা জয়ী উরুগুয়ে ৪-২ গোলে জয়লাভ করেছিল ইংলিশদের বিপক্ষে। আর ১৯৬৬ সালের বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে গোলশুন্য ড্র করে দল দু’টি। ওই আসরেই ইংল্যান্ড একমাত্র শিরোপাটি লাভ করে।

About The Author

Number of Entries : 2630

Leave a Comment

Scroll to top